মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

একনজরে কুষ্টিয়া সড়ক বিভাগ

একনজরে কুষ্টিয়া সড়ক বিভাগ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) এর খুলনা জোন এর আওতাধীন যশোর সড়ক সার্কেল এর অধীন “কুষ্টিয়া সড়ক বিভাগ” ১৯৬২ খ্রিঃ সনে প্রতিষ্ঠিত হয়। এতে সড়ক উপ-বিভাগ, কুষ্টিয়া ও ১ম সারি কারখানা উপ-বিভাগ, কুষ্টিয়া অর্থাৎ মোট ২টি উপ-বিভাগ রয়েছে। সড়ক বিভাগ কুষ্টিয়া আওতাধীন ২টি জাতীয় মহাসড়ক (৪৯.৬৪ কিঃমিঃ), ৪টি আঞ্চলিক মহাসড়ক (৭৪.৮৮৮ কিঃমিঃ) এবং ৯টি জেলা মহাসড়ক (১৩৩.৮১ কিঃমিঃ) সহ মোট সড়ক ১৫টি যার মোট দৈর্ঘ্য ২৫৮.৩৩৮ কিঃ মিঃ। এছাড়া, ১৫টি মহাসড়কে ২৭টি সেতু (১৩২২.৮৯ মিটার) ও ১৮৩টি কালভার্ট (৬০৬.৬৪ মিটার) রয়েছে। মহাসড়কসমূহ কুষ্টিয়া জেলার ৬টি উপজেলায় বিস্তৃত। জনগুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কগুলোর মধ্যে-

  • ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া-পাকশী ফেরী-দাশুড়িয়া জাতীয় মহাসড়কটি (এন-৭০৪) উত্তর বঙ্গের সাথে দক্ষিণ বঙ্গের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম।
  • আহলাদিপুর-রাজবাড়ী-পাংশা-কুমারখালী-কুষ্টিয়া (চৌড়হাস) (আর-৭১০) আঞ্চলিক মহাসড়কটি রাজধানী ঢাকার সাথে স্বল্প দূরত্বের সড়ক যোগাযোগ মাধ্যম।
  • কুষ্টিয়া (বটতৈল)-পোড়াদহ-আলমডাঙ্গা-চুয়াডাঙ্গা (আর-৭৪৭) সড়কটি কুষ্টিয়া জেলার সাথে চুয়াডাঙ্গা জেলার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ মাধ্যম।
  • কুষ্টিয়া (ত্রিমোহনী)-মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ (আর-৭৪৫) সড়কটি কুষ্টিয়া জেলার সাথে মেহেরপুর ও ঝিনাইদহ জেলার অন্যতম সড়ক যোগাযোগ মাধ্যম।
  • ভেড়ামারা-দৌলতপুর (জেড-৭৪১১) সড়কটি কুষ্টিয়া জেলা সদরের সাথে ভেড়ামারা ও দৌলতপুর উপজেলার সহজ সড়ক যোগাযোগ মাধ্যম।

এছাড়া, অন্যান্য জেলা মহাসড়কসমূহ কুষ্টিয়া জেলা সদর হতে অন্যান্য পার্শ্ববর্তী জেলার উপজেলা এবং উপজেলা হতে অন্য উপজেলাসহ সড়ক যোগাযোগের ক্ষেত্রে মাইলফলক।

মাননীয় সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী, স্থানীয় সংসদ সদস্যবৃন্দ, জেলা প্রশাসন এবং স্থানীয় জনগণের সার্বিক সহযোগিতায় কুষ্টিয়া সড়ক ব্যিভাগের আওতাধীন সড়ক ও অবকাঠামোসমূহ উন্নীতকরণণের জন্য এডিপি, পিএমপি (মেজর) ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজের কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে, যা বর্তমান সরকারের গৃহীত উন্নয়ন কার্যক্রমসমূহের প্রতিফলন। এরই ধারাবাহিকতায় কুষ্টিয়া সড়ক বিভাগের অধীন জেলা মহাসড়ক উন্নয়ন প্রকল্প-১ম পর্যায় (খুলনা জোন) এর আওতায় ৩টি জেলা মহাসড়কে ৩০.৯৪ কিঃমিঃ পেভমেন্ট নির্মাণসহ সার্ফেসিং এবং একই প্রকল্পের ২য় পর্যায়ে আরও ৩টি জেলা মহাসড়কের ৭.৮০ কিঃমিঃ পেভমেন্ট মজবুতীকরণসহ ২৩.৩৪ কিঃমিঃ সার্ফেসিং কাজ করা হয়েছে। এছাড়া, পিএমপি-সড়ক কর্মসূচীর আওতায় ২৩.৫৪ কিঃমিঃ সড়ক সংস্কার কাজ এবং পিএমপি-সেতু/কালভার্ট কর্মসূচীর আওতায় ৩টি মহাসড়কে ১২.০০ মিটার (৩টি) কালভার্ট ও ৩৯.২৮ মিটার সেতু নির্মাণ করা হয়েছৈ। কুষ্টিয়া জেলাবাসীর অন্যতম প্রাণের দাবী ৬.৬০ কিঃমিঃ “কুষ্টিয়া শহর বাইপাস সড়ক” নির্মাণ কাজ আগামী জুন, ২০১৮ এর মধ্যে যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হবে। গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক মহাসড়ক যথাযথমান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ (খুলনা জোন) প্রকল্পের আওতায় আহলাদিপুর-রাজবাড়ী-পাংশা-কুমারখালী-কুষ্টিয়া (চৌড়হাস) আঞ্চলিক মহাসড়কের ২৮.০৫৪ কিঃমিঃ সড়কের উভয় পার্শ্বে প্রশস্তকরণসহ হার্ডসোল্ডার নির্মাণ ও সার্ফেসিং এবং চড়াইকোল-শিলাইদহ আঞ্চলিক মহাসড়কের ৫.৪৩৫ কিঃমিঃ মজবুতীকরণসহ সার্ফেসিং অতিশিঘ্রই শুরু হবে। এছাড়া, চলতি অর্থবছরে পিএমপি-সড়ক (মেজর) কর্মসূচীর আওতায় ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া-পাকশী-ফেরী-দাশুড়িয়া সড়কের অধিক ক্ষতিগ্রস্থ অংশ ২৬.৬২ কিঃমিঃ এবং কুষ্টিয়া (ত্রিমোহনী)-মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ সড়কের অধিক ক্ষতিগ্রস্থ ১৩.২৫ কিঃমিঃ সংস্কার কাজ শিঘ্রই শুরু করা হবে। অপরদিকে, জেলা মহাসড়ক যথাযথমান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ (খুলনা জোন) প্রকল্পের আওতায় ৩টি সড়ক অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এবং প্রকল্পের ডিপিপি একনেক কর্তৃক অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। একনেক কর্তৃক ডিপিপি অনুমোদনের পর দরপত্র আহবানের মাধ্যমে বাস্তব কাজ শুরু করা হবে। আরও উল্লেখ্য, ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া-পাকশী ফেরী-দাশুড়িয়া জাতীয় মহাসড়কের কুষ্টিয়ার মূল শহরাংশ (১০.০০ কিঃমিঃ) ৪-লেনে উন্নীতকরণ ও অবশিষ্টাংশে (১৪.০০ কিঃমিঃ) যথাযথমানে উন্নয়ন কাজের মাঠ পর্যায়ে ডিপিপি প্রণয়ন কাজ চলছে। সড়ক অবকাঠামো নিরাপদ, সাশ্রয় ও আরো উন্নততর করার লক্ষ্যে অত্র দপ্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারীগণ নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাচ্ছে। আশা করা যায়, চলমান ও পরিকল্পনাধীন প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের মাধ্যমে ভবিষ্যতে অত্র জেলার সড়ক অবকাঠামো সমগ্র বাংলাদেশের সব জেলার মধ্যে অন্যন্য দৃষ্টান্তরূপে স্থান করে নিবে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter